https://www.verbling.com/find-teachers?price%5B%5D=5&price%5B%5D=80&sort=magic&language=bn

« March 2008 | Main | May 2008 »

Journal 2

শুক্রবারে আমাকে অফিসে গিয়ে কাজ করতে ছিল। আমি শনিবারেও অফিসে গেলাম। আমি প্রতি শুক্রবারে কাজ করি কিন্তু আমি মাঝে-মাঝে শনিবারে কাজ করি। শনিবার সকালে আমার সা'টায়ে ওঠা উচিত ছিল কিন্তু আমি সোয়া আঠটা অবধি ঘুমোচ্ছিলাম। আমার সকালে উঠতে খুব কঠিন লাগে। আমি খুব ক্লান্ত ছিল তাহলে আমি বিকেলে এক্ষুনি ঘুমোলাম। কাল আমি দেরি ঘুমোতে পেলাম না। এখনও আমি ক্লান্ত। আজ আমাকে ক্লাসে না হয়ে তাহলে আমি পুরি দিন ঘুমোব।


Journal 2

গতকাল আমার বন্ধুর অদ্রির জনমদিন আছে।  শুক্রবারে আমি অদ্রির জন্য চা আর চা strainer কিনেছি। কাল রাত্রি আমরা Point-এ যেতে দেখা করেছি।  আমরা wine, cheese, bread খেয়েছি, মুসিক সুনেছি আর ফির দেখেছি। তারপর আমরা s'mores রান্না করেছি।  আমি s'mores খুব ভালো লাগে। কাল আমি আমার বন্ধুর পরিবার দেখা করেছি।  আমরা ব্রেকফাস্ট Med-এ গিয়েছি, আর আমি দিম আর দুধ খেয়েছি।  যদি আমি হোমওয়ার্ক ফিনিস করি, তবে কাল আমি বন্ধুর সঙ্গে দেকা করব।   
আগামি চার মাসে, আমার দিদির graduate school-এ জাবে।  আমার দিদি, অদিতি, ব্রওনতে geophysics পড়ছ।  Graduate school-এ সে হিদ্রলগি পরবে।  অদিতি University of Maryland, Baltimore County-এ জাবে, কিন্তু আমরা মাবাবা Berkeley যেতে চায়।  অনেক দিন আমার মাবাবা অদিতির সঙ্গে আলোচনা করেছে, ঝগড়া করেছে, রাগ করেছে, কিন্তু অদিতি ঠিক করেছে যে সে University of Maryland-এ জাবে।  তার শিক্ষিকা University of Maryland-এ খুব ভালো লাগে, আর অখানে অদিতির research কুব মজা।  আমার দিদি আর মাবাবা প্রায় কখনো মারামারি করে না।


Extra Credit Journal

আমি অনেক কিছউ করতে ছাই আমার জাওার আগে। আমি ছাই যে আমি শব খাবারের জাইগাতে ছেস্তা করি, বন্ধুর শাতে "Arb" গুরি, Michigan Theatre চিনেমা দেখা, পুরন বন্ধুর শাতে দেখা করা। এ রখম আমার অনেক ইছা আছে। আমার আর কই আক দিন বাকি রএছে, আর আমি বন্ধুর শাতে নধির মদে নকা দেই ছলতে ছাই, আর পিকনিক করতে ছাই। আমি কালকে দালাই লামার কথা সুনিছি। তার কথা সুন্নার পরে তার উপর আমার অনেক শমান আছে। উনি খুব ভাল মানুস আর অনধের জনে অ কিছু বদলাই না। জামন, শে শবার শাম্নে লাল কাপর পরে ছিল আর পাএ কন জুত ছিল না, খালি ছাপাল ছিল। আমি খুব কুশি যে উনার কথা আমি সুন্তে পেরেছি। হাল্লে অনেক ছিনেসে মানুস রাগ করতে ছিল কারন তিবেতের বাএপার নেয়া। কিন্তু দালাই লামা কন দিন বলাই নাই যে অল্যম্পিচস ছিনাতে না হতে, শে কালি বলেছে যে তিবেতকে ছেরে দিতে। মানুস কান আত ফসাত করে??


Adil's Final Journals 7-10

Journal 7

আমার গরুম কাল বেশ ভাল লাগে। গরুমে দিনে বাইরে খেলা জাই আর শাদারন্ত এসচুল ছুতি থাকে। গরুম কাল দিনে আমি অনেক জাইগাই গুরি। ছার বরছ আগে আমি স্পাইন আর মরক্ক তে আমার পরিবার শাতে গেয়েছিলাম। পরের সুম্মারতে আমি নিউ ইয়রকে আমার ভাই আর বন কে দেক্তে গেয়াছি। তার পরের সুম্মার আমি সউথ আফ্রিচা আর গেরমান্যতে গুরেছি। আমি প্রাই ছার মাশ সউথ আফ্রিচাতে ছিলাম আর আমি দুরবানে থেকেছি। আমি বেশ ভাল লেগেছি সউথ আফ্রিচা, অনেক কিছু করার ছিল আর মানুস খুব ভাল ছিল। তার পরের সুম্মারে আমি মেডিকেল পরিক্কা জনে পরেছি আর আমার বাস্তি, সফিয়াকে দেকেছি চলরাদতে। আমি সফিয়া কথা আগে জউরনালে লেখেছি। এয় সুম্মার আমি ইছা আছে। আমি আমার চল্লেগের বন্ধুর শাতে ঘুরতে ছাই, চেদার পইন্তে, ণেও য়রক আর অন শহর। এয় বন্ধুগুলর শাতে আর বেশে দেখা না হতে পারে আর তার জনে আমি এয় সুম্মার তাধের শাতে কাতাইতে ছাই।

 

Journal 8

আমার খুব লাগছে গে এতা মিছিগানের শেশ বেঙ্গালি ক্লাস। আমি ছিন্তাই করতে পারি নাই যে আমি কলেজ উতাই আমি বাংলা পরার বেবস্তা পাব। আমার মনে আছে যে আমি খুব গরব করে আমার বন্ধুকে বলতাম যে আমার উনিভেরসিত্যতে বাংলা পরাই। আমি প্রতম চলাসসে ছিলাম আর আমি শেশের চলাসসে ছিলাম। অনেক মানুশ কশ্ত করে উনিভেরসিত্যতেকে রাজি করাইছে বাঙ্গালি পরাইতে, কিন্তু আকন আর তাকা আশ্তেছে না আর ইউনিভার্সিটি বাংলা ক্লাস বন্ধ করবে। এতা খুব দুখিত কথা, বাঙ্গালি পুর প্রেতিবেথের মদে ৬ না ৭ শবছে বেশি বর বাশা (http://en.wikipedia.org/wiki/Bengali_language)। বাংলাদেশের অনেক উপকার দরকার আর শাত্র জুদি জেতে পারে খুব ভাল হত। প্রাই শাত্র আফ্রিচাতে জাই কিন্তু বাংলাদেশের কথা কাও জানাই না। আমাধের ইউনিভার্সিটি বেশ নাম করা কিন্তু তারা যদি বাঙ্গালি পরাইতে পারে না এতা খুব কারাপ হবে। আমি জানি যে আমার খুব উপকার হএছি বাংলা নাওার পর। ডনবাদ মান্দিরা আর লুচ্য আউন্ত্য।

 

Journal 9

আমি আয় বছরে গ্রাদুয়াতে করছি ইউনিভার্সিটি থেকে। আমার ভাল লাগে যে আমার আর এরকম কাজ আর থাকবে না কিন্তু থাও আমার কারাপ লাগে যে আয় রকম আর শমই জিবনে হবে না। আমাধের বেশি কতিন জিনেশের ছিন্তা নাই, বাছার, বিল্ল, গারি, ঘাস কাতা। আমাধের ছিন্তা যে আমারা কে পরব আর কাম্নি মজা করব। আমার শব বন্ধু পাসসের আপারত্মেন্তে থাকবে না, আমার আসল কাজ থাকবে আর রজকার করা লাগবে। প্রাই মানুশ বলে যে এয় ছার বরছ পুর জিবনের শবছে ভাল, আর আমার ছার বরছর শেশ হবে ছার দিনের মদ্দে। এয় দিখে ছিন্তা করলে অবশই কারাপ লাগবে কিন্তু ইউনিভার্সিটি শেশ করার পরে নিসছই ভাল কিছু আছে। আমার পরের জউরনাল এয় নেই কথা বলবে।

 

Journal 10

ইউনিভার্সিটি শেশ করলে নিসছই অনেক ভাল জিনেশ আছে। এর পরে তুমি তমার প্রিও কাজ না পরা করতে পার। আমার অনেক বন্ধুছাকরি সুর করবে আর তাহলে তাদের নেইজের রজগার তাকবে আর তারা জা খুশি কিনতে পারবে, নেইজের তাকা দেই। তারপর, অনেক বন্ধু নুতুন নুতুন সহরে জাচ্ছে, কেও নিউ ইয়রকে, কেও মিছিগান অন চিতিতে, কেও দুবাই আর কেও বাংলাদেশ (আমি)। আমার জনে, দাক্তারি পরতে, অনেক বরছ লাগে আর এতা আমার ভাল লাগে না, কিন্তু আকন ছিন্তা করা জাই গে আমার প্রাই আধাতুক এশে গেয়াছি। আর আক্তা ভাল জিনেশ যে মানুশ আকন তমাকে পাত্তা দিবে কারন তুমি ইউনিভার্সিটি গ্রাদুয়াতে। আমি জানি না যে এতা ভাল না কারাপ কিন্তু আকন অনেক মানুশ বেয়া করে না হলে আক্তা ভাল মায়/ছেলে শাতে থাকে। আকন আমি এয় গুল জিনেশ ছিন্তা করতে পারি যে ভাল হবে গ্রাদুয়াতিওনের পরে, আশা করি যে আর ভাল জিনেশ কুজে পাব ধীরে ধীরে।


three brief final thoughts (sourav's journal entries 11-13)

১১ - চাকরী করা

চাকরী করা একদম কোনো মজা না প্রত্যেক দিন একি জিনিস করে করে ক্লান্ত না হওয়া অসম্ভব| নিজে যা করার ইচ্ছে তা করা যায় না, যা নেতা বলে ঠিক তাই করতে হয় যেই মুখ থেকে কথা বেরয় সেই মানতে হয়, যতই নির্বোধ হক ছা বছর চাকরী করে দেখলাম যে চাকরীর থেকে পড়াশোনা করা অনেক মজার, তাই আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরে এলাম

 

১২ - দেশভ্রমন

আমাদের দেশে পঞ্চাশটা প্রদেশ আছে সেই পঞ্চাস্টা প্রদেশের ভিতরে আমি বোধ হয় গটা চল্লিশটাই গিয়েছি এই দেশে অনেক সত্যি দেখার মতন সুন্দর জায়গা প্রচুর আছে কিন্তু বাড়ি করার জন্যে শুধু কয়েকটা ভালো জায়গা আছে আমাদের খইরি চাম্রার মানুষের জন্যে এখনও এই দেশের সাদা লক আমাদেরকে বিদেশি মনে করে এবং অপছন্দ করে তাই অনেক জায়গা আছে যে গিয়ে ঘুরে আসা বেশ মজা কিন্তু বেশি দিন থাকতে হলে কোনো মজা না

 

১৩ - ভোট

কখনো মনে হয় যে সাব গুন্ডাগুলই এক রকমের কিন্তু আমাদের সাম্প্রতিক রাষ্ট্রপতির ব্যবহার দেখে বঝা যায় যে সবগুল একি বলা ঠিক নয় এই সরকারটা কেমন অকারণে কত টাকা আর জীবন জলে ফেলে দিয়েই চলছে আশা করা যায় যে সব রাষ্ট্রপতি এমন অন্নায়ের কাজ করত না তাই আমাদের সাবায়ের এবার অনেক চিন্তাভাবনা দিয়ে ভালো করে ভোট দেওয়া দরকার


Journal 1

দু আগের সপ্তাহ, আমি ফ্লু ছিল।  প্রথমে সনি-রবিবারে, আমার জ্বর হয়েছে আর মাথা ব্যথেছে।  তারপর আমার গলা বাথা করিয়েছে আর ঠাণ্ঢা লেগেছে।  একন আমার মাথা ব্যথা করছে না।  কিন্তু আমি অনেক জল খাই।  আমার বিশ্রাম করা উচিত।  আমার দিদিমার  চোখ মাথা ব্যথা করছে।  পরের সপ্তাহ তার দোকটার জানেছে macular degeneration আছে।

পরের সপ্তাহ, আমি আমার তিন বদ্ধু সঙ্গে আপারত্মেনট পিয়েছি।  আমরা 57th Street and Blackstone থাকব।  আমাদের আপারত্মেনট চারটে শোওয়ার ঘর, একটা বসার ঘর, একটা খাওয়ার ঘর, আর দুট চানঘর আছে।  জুলি আমি ওখানে থাকব জন্য দুজনো বছর।  আগামি গরমকাল, আমি চিচাগোতে গণিত পড়ব। আমি চেলেমেয়ে পড়াব আর গণিত research করব।  সামনের গরমকাল, আমরা চারজন খুব ভালো খাবার রাঁধব।  আমরা Farmer's Market-এ জাব। তরকারি আর ফল কিনব।  আমি মাছের ঝোল, ঢাল ভাত, আর মাংস রান্না করব। আমরা অনেক জমা হবে।

-জাহ্নবি


Journal 10 Finally

             আমাদের জীবনের লক্ষ্য

প্রত্যেক মানুষের কোন না কোন লক্ষ্য থাকে। তেমনি আমার জীবনেরও একটা লক্ষ্য আছে। আমার জীবনের লক্ষ্য আমি ভবিষ্যতে একজন বড় কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার হব। এই লক্ষ্যে পৌছানোর জন্য আমি ছোট বেলা থেকেই পড়াশুনার প্রতি আগ্রহী ছিলাম।
আমাদের দেশ উন্নয়নশীল। তাই দেশের উন্নতির জন্য নতুন নতুন কলকারখানা তৈরির প্রয়োজন। এই সব কলকারখানা স্থাপনের জন্য বিভিন্ন ধরনের ইঞ্জিনিয়ারের প্রয়োজন। দেশের বিভিন্ন খাতে উন্নয়নের জন্য ভাল কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারের প্রয়োজন। আমি আমার দেশকে ভালবাসি। দেশের যাতে ভাল হয়, আমি যাতে আমার
পেশা
দিয়ে দেশের কোন কল্যাণ করতে পারি সেই চেষ্টাই আমার সবসময় থাকবে। নিজের লাভ বা লোভ আমার
কাছে
বড় নয়। দেশের উন্নতি দেশকে সেবা করার সুযোগই আমার কাছে বড়। এই দেশের মানুষকে আমি খুব
ভালবাসি।
এই দেশ ভবিষ্যতে যেন অনেক উন্নতি করতে পারে এবং আমি সেই উন্নতিতে আমার পেশা দিয়ে সাহায্য
করতে
পারি এটাই আমার ইচ্ছা আমি দেখেছি আমাদের দেশে কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারের সংখ্যা খুব কম। এই সবদিকে
চিন্তা
করে আমি ঠিক করছি আমি বড় হয়ে একজন নাম করা কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার হব এবং দেশের সবো করব।



Journal 9

                                          নৌকা ভ্রমন

আমাদের
 দেশে অনেক নদী, খাল-বিল আছে। সারা বছর নদীতে নৌকা চলে। বর্ষাকালে নৌকার ব্যবহার আরও বেশি হয়। জীবনে প্রথম নৌকা ভ্রমনের কথা আমার সবসময় মনে থাকবে।
আমাদের এক আত্নীয়ের বাড়ি আমাদের বাড়ি থেকে পনেরো কিলোমিটার দুরে ছিল। বর্ষাকালে নৌকা ছাড়া সেখানে যাওয়া যেত না। এক ছুটির দিন ঠিকহল সেই আত্নীয়র বাড়ি যাওয়া হবে। নৌকায় বেড়াতে পারব বলে মনে মনে খুব খুশি হলাম। আমরা পাঁচজন নৌকায় উঠলাম। দুইজন মাঝি ছিল। সকাল আটটায় নৌকা ছাড়ল। অনেক দুরের পথ। প্রথমে খাল পার হয়ে নদী দিয়ে অনেক ঘুরেফিরে বিকেলের দিকে পৌছাব। 
অনেক
 সময়ের ব্যাপার বলে নৌকায় বিছানাবিছিয়ে নেওয়া হল। যাতে আমরা শুয়ে বসে আরাম করে যেতে পারি। 
সাথে
 অনেক রকমের খাবার নেওয়া হয়েছিল দিনটি ছিল চমৎকার খালের পথটুকুর দুধারে মানুষের ঘড়বাড়ি। বিভিন্ন মানুষ নানা কাজে ব্যস্ত। আমরা খাল পার হয়ে নদীতে চলে এলাম। বাতাস না থাকলেও ঢেউয়ের আঘাতে 
নৌকা
 দুলে উঠতে লাগল। তীর ঘেঁষে আমাদের ছোট নৌকা চলতে লাগল। হঠা ঝড় শুরু হয়। মাঝি তাড়াতাড়ি তীরে 
নিরাপদ
 জায়গায় আশ্রয় নিল। কিছুক্ষনের মধ্যে ঝড় থেমেগেল। আমরা আবার চলতে লাগলাম। নদীতে অনেক 
নৌকা চলাচল করছে। আমরা দুপাশের দৃশ্য দেখছি। হঠা হৈচৈ শুনে দেখি একটু দুরের একটি নৌকা কাত হয়ে 
যাওয়াতে
 সেই নৌকায় বসা এক মায়ের কোল থেকে তার বাচ্চাটা নীতে পড়েগেছে। ধর ধর বলে নৌকার অন্যান্য 
যাত্রীরা
 নীতে ঝাপিয়ে পড়ে বাচ্চাটিকে বাঁচাল। এই দেখে আসে-পাশের নৌকা থেকে সকলে আনন্দে চিৎকার করতে 
লাগল
এইভাবে একরকম আমরা আমাদের জায়গায় পৌছে গেলাম। এই নৌকা ভ্রমনের কথা আমার সারা জীবন মনে থাকবে।


  


লেখা পরা করা সেশ

হেইলি

জরনাল ১০

১৫/০৪/০৮

আমি বিসাস করতে পারছি না যে দুই বরচর হয়ে গিয়েছিল।  এতু তাড়াতাড়ি লেখা পড়া করা সেশ।  আর একন কি হবে?  আমি গরমকালে বাংলাদেশে থাকব স্তাইত দিপারত্মান্তে সঙ্গে কাজ্জ করব।  আমি খুব কুসি যে তিন বরচর পরে আবার বাংলাদেশে ফিরি যাব।  আমি দেখতে চাই কি কি চাইঞ্জ হয়ে গিয়েছিল?  গুলসান দেখতে কেমন? বনানি আর ভারিধারা দেখতে কেমন?  আবার পাবনাতে যাওা উজিত।  আমার ভালো ভন্দুবি দেখতে হবে।  আমি সুনেছিলাম যে ঢাকা অনেক কিচু চাইঞ্জ করেছিল।  একন আমার নিজের চোক দেখতে পারব।  আমি অপেক্কা করতে পারি না!


elections

হেইলি

জরনাল ৯

১৫/০৪/০৮

এয় বরচর আমাদের দেশে ইলেক্সান হবে।  রিপাব্লিকান নমিনাইসান হয়ে গিয়েছিল।  জন মিকাইন হয়েছে।  আমাদের দেমক্রাতিক রাইস খুব কাচে কাচি কিন্তু।  সব চেয়ে বড় পরস্ন হছে কে প্রতম হবে?  ওবামা বা ক্লিন্তন?  সবাই মনে হয় যে জারা খকন বত করেছিল, এয় বার বত করবে।  এয় বরচর খুব বড় বাংলাদেশের জন্য।  দুত দেশ ইলেক্সান করবে আর ইন্সাল্লা সরকারি সব কিচু নতুন হয়ে যাবে। 


পতলক ২

হেইলি

জরনাল ৮

১৫/০৪/০৮

এয় সামেস্তার আমরা আবার সালিমার বাড়িতে গিয়েছিলাম পতলকের জন্য।  সবাই একতু খাবার রান্না করেছিল।  রাইচেল সবজি রান্না করেছিল, সরাভ চানা মাসালা রান্না করেছিল, আর আমি মুরগি মংস রান্না করেছিলাম।  সালিমা কিন্তু খুব মজা খাবার রান্না করেছিল।  করমা, পুলাউ, আর সবজি ছিল।  তারপর ওনি একতা কাইক বানিয়েছিল।  সরাভ স্ত্রিকে আনেছিল আর ওর নাম মারি।  সে খুব সুন্দর অর ভালো মেয়ে।  আমরা সবাই কাওা দাওা করেছিলাম আর পরে গল্প করেছিলাম।  সালিমার বাড়ি খুব ভালো জাইগা। 


যরদান

হেইলি

জরনাল ৭

১৭/০৩/০৮

যরদান

আমি অবাক হয়ে গেলাম ঝকন আমি একতা ঝাইগা পায়েচিলাম এ International Economic Development Program (IEDP)/ যরদান।  প্রতি বচর, আমার পুব্লিক পলিসি প্রগ্রাম ২৫ জন সেলেক্ত করে এ ভালো প্রগ্রামের জন্য।  চাত্র চাত্রিরা বিবিন গ্রাজুয়াত এস্কুল থেকে ভাইবা ফাইস করে।  প্রিয় ৭০ আপ্লিকাইসান কম্পলিত করে আর ২৫ যেতে পারবে।  গত বচর, চাত্র-চাত্রিরা পেরু গিয়েছিল আর এ বচর আমরা যরদানে গিয়েছিলাম। 

যরদান একতা দেশ মিদাল ইস্তে।  অদের সান্সক্রিতিক আর বাংলাদেশ সান্সক্রিতিক মুতা-মুতি এক।  মাক্সিমাম মানুষ মুসাল্মান।  অদের খাবার primarily ভাত আর মংস।  অরা মান্সাফ বলে।  যরদানের কাপিতাল আমান হছে।  আমান একতা খুব পরিস্কার শহর।  সব কিচু আছে।  আমি অবাক হয়ে গেলাম ঝকন আমি দেখলাম কেমন প্রগ্রেসিভ।  যরদান অনেক ওয়েস্তেরন ইনফ্লুওয়েস আছে।  অদের ফাস্ত খাবারের সান্সক্রিতিক খুব দিস্তারবিং।  McDonald’s, Burger King, Hardeez, Popeye’s, Applebee’s, Bennigan’s, and Starbuck’s আছে।  এগুল ভালো না অদের দিয়েত আর শাস্ত জন্য।  থাই জন্য দাইয়াবিতিস বারা ঝাছে। 

যরদান মানুষ খুব ভালো।  বড় মন আছে।  আমার বন্ধুবি যরদান থেকে আরে সে আমাদের সঙ্গে গিয়েছিল।  ওর বাড়িতে ছিলাম আর তার পরিবার এতু আদর আমাকে করেছিল।  আমার মনে হই ওর একতা পরিবার আছে।  আমি টিক জানি যে যরদানে আবার ঝাব।               


Journal 7

একুশে ফেব্রুয়ারী

বাংলাদেশীদের জাতীয় জীবন যে সব দিনের অনেক গুরুত্ত্ব রয়েছে তার মধ্যে অমর একুশে ফেব্রুয়ারী বা শহীদ 
দিবস
 বিশেষ মর্যাদার অধিকারী। একুশে ফেব্রুয়ারীর মাধ্যেমে এদেশের মানুষ রিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করেছে এবং এই পথ ধরেই বাংলাদেশের শাধিনতা এনেছে। মুসলামানদের আলাদা বাসভূমি পাকিস্থানী সৃষ্টি হয়েছিল। ১৯৪৭ সালে সংখ্যা গরিষ্ঠ বাঙ্গালী অধিকার উপেক্ষা করে উরদু 
ভাষাকে
 রাষ্ট্র ভাষা হিসাবে প্রচলনের উদ্যোগ নেয়তখনকার পাকিস্থানের সরকারের প্রতিবাদে বিভিন্ন 
সময় বাঙ্গালীরা ধর্মঘাট  মিছিল করতে থাকে। ১৯৫২ সালে ঢাকায় তখনকার পাকিস্থানের প্রধান মন্ত্রী 
নাজিম উদ্দিন ওদের পক্ষে মত প্রকাশ করলে প্রতিবাদে  ফেব্রুয়ারী ঢাকায় ধর্মঘাট হয়। (to be continued)


Journal 8

একুশে ফেব্রুয়ারী

 

২১ শে ফেব্রুয়ারী সারা দেশে ধর্মঘাট আহব্বান করা হয়। তখনকার সরকার এই আন্দোলনকে থামানর 
জন্য ২১শে ফেব্রুয়ারী ঢাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে। ২১শে ফেব্রুয়ারী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সভা হয় এবং 
১৪৪
 ধারা ভঙ্গ করার সিন্ধান্ত নেওয়া হয়। ছাত্র জনতা ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে রাস্তায় নেমে আসে। পুলিশ জনতাকে 
দিকে
কাদানি গ্যাস ছুড়ে। এতে জনতা উত্তেজিত হয়ে পড়ে তখন পুলিশ নিরাপরাদ ছাত্রদের উপর গুলি চালায় 
পুলিশের গুলিতে শহীদ হন বরকত, সালাম, জব্বার, রফিক  আর অনেকে। ১৯৫২ সালে ২১ শে ফেব্রুয়ারী 
হত্যা
 কান্ডে বাঙ্গালী জাতিকে আত্ম সচেতন করে তোলে এবং নিজেদের অধিকার আদায়ের জন্য তারা বদ্ধ 
পরিকর
 হয়ে ওঠে। এভাবেই বাঙ্গালী জাতি অর্জন করে মাতৃভাষা।পরে এই একুশে ফেব্রুয়ারী আন্তজার্তিক ভাষা 
দিবস হিসাবে  পরিছিতি লাভ করে।

 


Journal 10- last one :(

আমি ভাবতে পারছি না যে এটা আমার সবছে last journal entry! এই দুই বাচ্ছর এতো তারিতারি কাটিয়েছে। আমি সবাইকে খুব "miss" করব এই সআমনের semester। এমি ভাবিনি বাংলা ক্লাশ থেকে আমার এতো মজা হবে এবং যে ক্লাশ থেকে আমি বুন্ধু করব। আমি miss করব সবার সঙ্গে রজ দেখা। আর "skit" আর "movie" করার "experience" পাব নে আর কন্য ক্লাশে। ক্লাশে রজ হাসার আর আনন্দ করার আমি miss করব। আমি নিসছই চেস্টা করব গরমকালের সময় বাংলা vocabulary review কারা কারন আমি আমি কিছু ভুলে জেতে ছাই না। নিসছই আমাদের সব এই সামনের semester meet করতে হবে, কারন আমি সবাইকে দেখতে ছাই!  তাউ শারমিন আর আমি একশঙ্গে দেখে হবে কারন আমরা দুজোনে "IASA Show" করব। আমি ভালো করেছি যে আমি বাংলা নিয়েছি, কারন আমার এই তার থেকে আমি অনেক শিখেছ।


End-of-semester backlog! (Journal entries 6-10)

আমার অনেক লেখা বাকি আছে আর খুব কম সময় রয়েছে তো যে ব্যাপারের সমন্ধে তাড়াতাড়ি লিখতে পারি সে ক্ষেত্রে লিখব

 

৬ - ভাইবোন

আমার ভাইএর নাম অরিজিত ছোটো বেলায় আমরা সব সময় এক সঙ্গে থাকতাম এক হাথে মা-বাবা দেশ থেকে আসার ফলে অনেক জিনিস ভাল করে বুঝতে পারত না আর এক হাথে আমাদের নিজেদের বয়সের পাড়ার সাদা ছেলেমেয়েরাও অনেক জিনেস বুঝত না তার ফলে আমি আর অরিজিত এক সঙ্গে অনেক সময় কাটাতাম আমরা দুজনে অনেক গপন কথা বলতাম আর অনেক মজা করতাম

 

৭ - মজা করা

আমরা এক সঙ্গে বাহিরে খেলা ধুল করতাম, ভেতরে বই পরতাম, হলে গিয়ে ছায়াছবি দেখতাম অরিজিত যখন কিছু করতে না চাইত তখন আমি করতে চাইতাম না আমি যখন কিছু করতাম বা কথাও যেতাম তখন ঠিক অরিজিত আমার পাশাপাশি আসত যেখানেই যেতাম আমরা এক সঙ্গে ছিলাম বলে আমদের মজা হত তাই আর কেও আমাদের বয়সের না থাকলেও আমরা দুজনেই নিজেরা বেশ মজা করতাম

 

৮ - গান শোনা

অনেক সময় বাবা-মা আমাদেরকে গান শুনতে নিয়ে যেত অন্য বাঙালি বাচ্চারা গান শুনতে যেতে চাইত না কিন্তু আমাদের বাড়িতে তো সব সময় গান চলত এবং অনেক গায়ক আমাদের বাড়িতে এসে থাকত পন্দিত জাস্রাজ ছিলেন আমাদের সাথে, মান্না দে ছিলেন আমাদের সাথে বাচ্চা বয়সে আমরা জানতাম কি সাঙ্ঘাতিক ব্যাপার যে এত বড় বড় শিল্পীরা থাকতেন আমাদের বারিতে তাও আমরা খুব পছন্দ করতাম গান বাজনা আর আরিজিত তো কয়েক বছর ধরে মান্না দেকে চিঠিও লিখত

 

৯ - ব্যবহার

যাই হক, গান শোনা বা আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে নিমন্ত্রন, আমি আর অরিজিত সব সময় খুব ভাল ব্যবহারের ছেলে ছিলাম সবাই তাই বলত আর বড়রা একদম অবাক হওয়ে যেত আমাদেরকে এমন শান্ত দেখে অন্য ছেলেরা ভীষণ দৌরাদৌরি করত কিন্তু আমরা বারির বাহিরে গেলে বেশির ভাগ সময় চুপ করে নিজেরা খেলতাম সবাই ভাবত দেখে যে আমরা না কি সব সময় এমনি চুপ চাপ

 

১০ - ঝগ্রা

বাড়িতে অরিজিত আর আমি এমন দারুন বন্ধু ছিলাম তেমন দারুন ঝগ্রা এবং বলা যায় জুদ্ধও করতাম কখন কখন আমির অরিজিতের পিছনে বেশ লাগতাম বা ভাঙ্গাতাম বা অর সঙ্গে না মজা করে অকে নিয়েই মজা করতাম এক বার অরিজিত এমন রেগে গিয়েছিল যে আমার মুখের দিকে হাত ছুরে আমার চস্মাই ভেঙ্গে দিয়ে ছিল তাও শেষে আমরা সব সময় সব মিটমাট করে নিতাম আর আজ পর্যন্ত আমরা ভাল বন্ধু

 


Corrections, Journal 1

আজ আমি বাইরে বসব কারণ আবহাওয়া খুব ভাল। আমি স্নান করে, ভাত খেয়ে, মা ফোন করে, একটা বই নিয়ে মাঠে বসব। আমার বন্ধুর আমার পাশে উচিত কিন্তু তার কাজ করার দরকার।

যদি প্রতিদিন আবহাওয়া ভাল থাকে, তাই আমি রোজ বাইরে যাব। আমি ভাবি যে রোদেকে বই পড়া খুব মজার। বসন্তকাল এস (is coming) আর সবকিছু অনেক সবুজ।

গতকাল, আমি “SASA” শোএ গেলাম। আমি রাতরে খাবার সাহাযলাম (helped with dinner)। এ শো আমি খুব ভালবাসি। সবলোকে নাচ করেছে, তারা হাসেছে।


Comments on gossip

Jahnavi and Yusuf: one of Yusuf's friends got into a fight. There was a teacher's conference, and the teacher saw a security guard. The next morning, Yusuf's friend is in jail and he has to go there to get him out.

Supriya and Mohan: talking about Jahnavi's 'situation.' She went to a party, drank a lot, and ate too much (?). She ate Andrew yesterday. Mohan doesn't like dead people, so he isn't friends with Andrew anymore.


Corrected journal 1

নিরবিবার আমি থুব কম কাজ করেছি। আমি অনেক টিভি দেখেছি। আমার বন্ধর সঙ্গে সিনেমা দেখেছি। তারপর আমি বন্ধুর সঙ্গে বাইরে খেতে গেচছি। আমরা অনেক কথা বলেছি আর খাবার খেয়েছি। আমি খবরের কাগজের জনে লিখি। রবিবার আমি একটা মিটিঙ্গে গেছি এ কাগজের। তারপর আমি দোকানে গেছি আর খাবার কিনেছি।  


Corrected Journal 1 - Andrew

গত সপ্তাহে আমি অনেক ক্লাসে গেলামসব ক্লাস ঠিক লাগেআমার মনে হয় যে এ ক্লাসগুলো খুব কঠিন হবে নাএটা খুব ভাল কারণ বসন্তকালে আবহাওয়া খুব ভাল আর আমার বাইরে যেতে ভাল লাগে

পরের সপ্তাহে আমাকে ক্লাসের বেশি কাজ করতে হবে না, কিন্তু আমার একটা খুব বড় লেখআ  শেষ করার দরকারআমি আজ রাত্রিতে দেরিতে/দেরি করে ঘুমোব কারণ আমার লেখা উচিত হবেআমি কাল বিকেলের আগে এ পেপার আমার শিক্ষককে দিতে চাই

  কাল আমার মামা শিকাগোতে আসবেনতিনি দুই-তিন দিন এখানে থাকবেনআমার আর এক মামাতিনি শিকাগোতে থাকেনকাল রাত্রিতে আমরা সবাই ভাল রেস্টুরান্টে খেতে যাবআমার সঙ্গে তাঁদের প্রায় দেখা হয় না তাই খুব ভাল হবে


 


Journal 1 1st year - Andrew

    গত সপ্তাহে আমি অনেক ক্লাসে গেলাম। সব ঠিক লাগে। আমার মনে হয় যে এ ক্লাসগুল খুব কঠিন হবে না। এ খুব ভাল কারণ বসন্তকালে আবহাওয়া খুব ভাল আর আমার বহরে জেতে ভাল লাগে।

 আগে সপ্তাহে আমাকে ক্লাসের খুব কাজ করতে হবে না, কিন্তু আমার এক খুব বড় লেখ লিখতে শেশ করার দরকার। আমি আজ রাত্রিতে দেরি ঘুমোব কারণ আমার লেখা উচিত হবে। আমি কাল বিকেলের আগে এ পেপর আমার শিক্ষকে দেতে চাই।

  কাল আমার মামা শিকাগোতে আসবেন। তিনি দুই-তিন দিন এখানে থেকবেন। আমার আর এক মামা। তিনি শিকাগোতে থেকেন। কাল রাত্রিতে আমরা সব খেতে ভাল রেস্ট্রান্টে যাব। আমি প্রায় তাঁদের দেখি না তাহলে খুব ভাল হবে।


Journal 1 - Katia

আজ আমি বাইরে বসব কারন আবহাওয়া খুব ভাল। আমি স্নান করে, ভাত খেয়ে, মা ফোন করে, একটা বই সঙ্গে মাঠে বসব। আমার বন্ধু আমার পাশে বসা উচিত কিন্তু সে কাজ করার দরকার।

যদি প্রতিদিন আবহাওয়া ভাল, তাই আমি রোজ বাইরে জাব। আমি ভাবি যে পড়তে সুয্যর (with ‘r’ accent, surjar- sun) নিচে খুব মজা। বসন্তকাল এস আর সবকিছু অনেক সবুজ।

গতকাল, আমি “SASA” সো গেলাম। আমি রাতের খাবার সাহাযলাম। এ সো আমি খুব ভালবাসি। সবলোক কে নাচ করেছে, তারা হাসেছে।


Journal 1

এ সনিরবিবার আমি থুব কম কাজ করেছি। আমি আনেক তিভি দেখেছি। আমার বন্দুর সঙ্গে সিনেমা দেখেছি। তারপর আমি বন্ধুর সঙ্গে বাইরে খেতে গেচি। আমরা অনেক কোথা বলেছি আর খাবার খাবার খেএছি। আমি খবরের কাগজের জনে লিখি। রবিবার আমি একটা মিটিঙ্গে গেছি এ কাগজের জনে। তারপর আমি দকানে গেছি আর খাবার কিনেছি।  


Journal 9

আছকে বাইরে খুবি সুন্দর ছিল! এই বাচ্ছারে, আমার মনেহই যে ঠান্দাটা এক্তু বশি খন রয়ছিল। আমি শতি মনে হোছিল যে আমি কখন "sweater পরা বন্ধ করব আর কখন গরমকালে কাপর পরব। আছেকে আমি বাইরে আমার "Anthropology" বই পরছিলাম, কি সুন্দর রধ ছলো। আমার মোনটা অনেক সান্তিতে ছিল এই কারনের। আমার বাবা আছকে আসল আমাকে কিছু দিতে, আর আমি বাবাকে আমার শব "sweater" কারন আমি "realize" করলাম যে এই গুলোর দরকার নেই। আখন আমার dresser অনেক খালি খালি হয়ে গছে!  আমআর খালি এক্তু দুখ হোচ্ছে যে এই সামনের স্পতাই অনেক ব্রিশ্তী  পড়বে, তার মানে কাম রধ হবে! কিন্তু আমি সতি খিসি যে আর বরফ পরবে না! বাবা, অনেক বরফ পরেছে এই বারে, আর আমার মনে হয় যে আর বারফের দরকার নেই!  আমি কালকে খালি পায়ে বাইরে গিয়েছিলাম, আর আমার কিছু ঠান্দা লাগিনি! Finally কয়েক মাশের জন্য বাইরে গরম হবে!